কর্মসূচি

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন জনহিতৈষী ব্যক্তির (আরবি ভাষায় ফায়েল খায়ের) অর্থায়নে ইসলামিক ডেভলপমেন্ট ব্যাংক কর্তৃক বাস্তবায়িত ফায়েল খায়ের কর্মসূচির উদ্দেশ্য সাইক্লোন দুর্গতদের (১) সুদমুক্ত ক্ষুদ্রঋণ সহায়তার মাধ্যমে জরুরি ত্রাণ প্রদান এবং (২) স্থানীয় জনসাধারণ ও তাদের গবাদিপশু ভবিষ্যৎ বিপর্যয় থেকে রক্ষার জন্যে অধিকতর প্রাকৃতিক দুর্যোগপ্রবণ এলাকায় একাধিক আশ্রয়কেন্দ্র নির্মাণ করা।

পটভূমিকা

২০০৭ সালের ১৫ই নভেম্বরে ভারি বর্ষণ, ২০ফুট (৬মিটার) উচ্চতার জলোচ্ছ্বাস ও ২২৩কিলোমিটার পর্যন্ত বাতাসের গতিবেগবিশিষ্ট অত্যন্ত শক্তিশালী এক সাইক্লোন (সাইক্লোন-সিডর) বাংলাদেশের দক্ষিণ-পশ্চিম উপকূলে আঘাত হানে, যাতে দেশের ৬৪টি জেলার মধ্যে ৩০টিতে ব্যাপক জীবনহানি ও ক্ষতি সাধিত হয়। বাংলাদেশের দক্ষিণ-পশ্চিম উপকূলে ২০০৭ সালের নভেম্বরে সংঘটিত এ প্রলয়ংকরী সাইক্লোন-সিডরে ক্ষতিগ্রস্ত জনসাধারণকে জরুরি সাহায্য প্রদান এবং এসব অঞ্চলে বারবার সংঘটিত সাইক্লোনের দীর্ঘমেয়াদি সমাধানের লক্ষ্যে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন দাতা (আরবি ভাষায় ফায়েল খায়ের) ইসলামিক ডেভেলপমেন্ট ব্যাংকের (আইডিবি) মাধ্যমে ১৩কোটি মার্কিন ডলার উদারভাবে দান করেছেন, যা বাংলাদেশের উপকূলীয় অঞ্চলে কয়েকশ’ স্কুল-কাম-সাইক্লোন শেল্টার নির্মাণ এবং সিডর দুর্গত কৃষক ও জেলেদের এবং ক্ষুদ্র ব্যবসায়ে কৃষি-উপকরণ আকারে জরুরি ত্রাণ-সাহায্য প্রদান করতে ব্যয় করা হবে। এ কর্মসূচি বাস্তবায়নের জন্যে বাংলাদেশ সরকার ও আইডিবির মধ্যে ২০০৮ সালের ১২ই মে একটি সমঝোতা-স্মারক (এমওইউ) স্বাক্ষরিত হয়। সমঝোতা-স্মারক অনুযায়ী আইডিবি এ কর্মসূচি বাস্তবায়ন করবে এবং বাংলাদেশ সরকার কর্মসূচিটির কার্যক্রম সফলভাবে সম্পন্ন করতে আইডিবিকে প্রয়োজনীয় যাবতীয় সাহায্য ও সহযোগিতা প্রদান করবে।

  

বামে: স্যাটালাইট থেকে তোলা সাইক্লোন-সিডরের ছবি; ডানে: সাইক্লোন-সিডরের ধ্বংসাবশেষ, নভেম্বর ২০০৭


ফায়েল খায়ের কর্মসূচির মূল উপকরণসমূহ

ফায়েল খায়ের কর্মসূচি (এফকেপি) দুইটি মূল ক্ষেত্রে এ দানের অর্থ ব্যয় করছে:

  • স্কুল-কাম-সাইক্লোন শেল্টার নির্মাণ—১১০,০০০,০০০ (এগার কোটি) মার্কিন ডলার ব্যয় করা হবে সাইক্লোন-সিডরে বিধ্বস্ত এলাকায় কয়েকশত স্কুল-কাম-সাইক্লোন শেল্টার নির্মাণ করার জন্যে, যা স্বাভাবিক অবস্থায় বিদ্যালয় ভবন এবং দুর্যোগের সময় আশ্রয়কেন্দ্র হিসেবে ব্যবহৃত হবে।
  • পুনর্বাসন কর্মসূচি¾ক্ষতিগ্রস্ত কৃষক, জেলে ও অন্যান্য উদ্যোক্তাকে কৃষি উপকরণ আকারে জরুরি ত্রাণ প্রদানের জন্যে অবশিষ্ট ২০,০০০,০০০ (দুই কোটি) মার্কিন ডলার ব্যয় করা হবে।

জোন ১-এ প্রারম্ভিক নির্মাণকাজ (ঠিকাদার আবদুল মোনেম, প্যাকেজ-১)

ফায়েল খায়ের কর্মসূচির অধীনে পুনর্বাসন উপকরণের আওতায় কয়েকজন উপকারভোগী

প্রোগ্রাম ম্যানেজমেন্ট অফিস (পিএমও)

ফায়েল খায়ের কর্মসূচি বাস্তবায়নের লক্ষ্যে আইডিবি বাংলাদেশের ঢাকায় অবস্থিত আইডিবি ভবনে (পঞ্চম তলা) একটি প্রোগ্রাম ম্যানেজমেন্ট অফিস (পিএমও) স্থাপন করেছে। এ অফিসের প্রধান প্রোগ্রাম ডাইরেক্টর এবং তাঁকে সহযোগিতা করেন পিএমও-র কর্মকর্তা-কর্মচারী, পরামর্শক ও ঠিকাদারবৃন্দ।.

উপদেষ্টা কমিটি

কর্মসূচি বাস্তবায়নসংক্রান্ত সকল বিষয়ে সরকারের উচ্চ পর্যায়ে যোগাযোগ রক্ষা ও পরামর্শের জন্যে বাংলাদেশে একটি উপদেষ্টা কমিটি গঠন করা হয়েছে। এ কমিটির সদস্য ছয়জন। তাঁরা হলেন:

বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক নিযুক্ত:

  • সচিব, অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগ
  • সচিব, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়; এবং
  • সচিব, খাদ্য ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রণালয়

আইডিবি কতৃর্ক নিযুক্ত:

  • অধ্যাপক ড. জামিলুর রেজা চৌধুরী, সাবেক উপাচার্য, ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়;
  • অধ্যাপক ড. আনোয়ার হোসেন, উপাচার্য, আহসানউল্লাহ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়; এবং
  • ড. মোহাম্মদ হাসান সালেম, সমন্বয়ক, এফকেপি